Bengali BlogTravel Blog

১০০ ডলারে থাইল্যান্ড ভ্রমন—বাজেট ট্রাভেল প্লান.

থাইল্যান্ড,ব্যাংকক শব্দগুলো শুনলেই আমাদের মনে ভেসে আসে বিলাসী ভ্রমন প্লান বা হানিমুন এর পরিকল্পনা। থাইল্যান্ডে কিন্তু স্বল্প টাকায়ও ঘোরা যায়। আজ একটু সেই ব্যাপারে জানা যাক।

মাত্র ৭ দিন হল ব্যাংকক থেকে আসছি। যেহেতু এবারে আমি খরচ খুবই কম করেছি তাই ভাবলাম আমার মত যারা গরীব ট্রাভেলার তাদেরকে আমার এই চিপ ট্রাভেল প্লানটা শেয়ার করি । এটা ছিল আমার ২য় বার থাইল্যান্ড ভ্রমণ তাই আগে থেকেই অনেক কিছু যানা ছিল ।
ভিসা পাবার পর আমি টিকিট কাটি থাই লায়ন এয়ারের । ১৪ দিন আগে টিকিট কেটেছিলাম। মোট দাম পড়ে ১৬০.১$ ।ফ্লাইট ছিল রাত ২ টায়। ব্যাগেজ নিতে পারব মাত্র ৭ কেজি । সেভাবেই যাত্রা শুরু করি । থাই লায়ন বাজেট এয়ার হওয়া সত্ত্বেও তারা বিমানে পানি এবং বান (রুটি) দিয়েছে। যেটা আমার কাছে অপ্রত্যাশিত ছিল ।


ঢাকা বিমান বন্দরে ইমিগ্রেশন শুধু ১ টা প্রশ্ন করেছে সেটা হচ্ছে আপনি কি করেন ? ছাত্র বলার পরও অফিসার আর কোন প্রশ্ন না করেই সিল দিয়ে দিয়েছে । ব্যাংকক পৌছাই ভোর ৬ টাই । ডন মুয়েং এর ইমিগ্রেশন খুবি Smooth ছিল । আমার রিটার্ন টিকেটও দেখতে চাইনি ।পাসপোর্ট দেয়ার সাথে সাথেই ফিঙ্গারপ্রিন্ট নিয়ে সিল দিয়ে দিয়েছিল।

ইমিগ্রেশন পার করে নীচ তলায় এসে ৬ নাম্বার গেট দিয়ে বের হয়ে অপেক্ষা করছিলাম A4 বাসের জন্য । A4 বাস আপনাকে নিয়ে যাবে ফেমাস খাওসান রোডে । সেখানে গিয়ে সকাল টা ঘুরতে এবং ডলার ভাঙ্গাতে পারেন ।আমার পরিচিত কিছু হোস্টেলের কর্মচারী ছিল তারা বার্মার । তাদের সাথে আমি আড্ডা দিতে গিয়েছিলাম অনেক দিন পর। তারপর দুপুর ২টায় খাওসান রোড এলাকার বাসস্টপ থেকে ৩নাম্বার বাসে করে চলে গেলাম Southern Bus Terminal। সেখান থেকে ৫ টার বাসে চলে গেলাম ফুকেট। Bus Terminal এ গিয়ে কমদামী টিকেট বললেই তারা আপনাকে ৬৩৭ বাথ এর টিকেট দিয়ে দিবে। ব্যাংকক থেকে ফুকেট এ পৌছালাম সকাল ৬-৭ টার দিকে। ফুকেট Bus Terminal এ ওয়াশরুম থেকে ফ্রেশ হয়ে নিলাম।বাসে আপনাকে পানি এবং বিস্কিট খেতে দিবে । তাছাড়াও বাস মাঝে ২০ মিনিটের যাত্রা বিরতি আছে । 


ফুকেট বাস টার্মিনালে পুরানো ভেজিটেবল মার্কেট যাবার বাস পেলাম । সোজা ওটাতে গিয়ে উঠলাম । ২০ বাথে আপনি পৌছে যাবেন। সেই বাস আপনাকে যেখানে নামিয়ে দেবে তার ঠিক কাছে( ১ মিনিট হাটা ) আপনি পেয়ে যাবেন Patong Beach যাবার বাস। উঠে যাবেন এবং ২৫ বাথে পৌছে যাবেন পাতং বিচের কাছে বাংলা রোডে । বাংলা রোডের আসে পাসে হোস্টেল পেয়ে যাবেন অনেক । আমি ছিলাম ৯৯ বাথের একটা হোস্টেলে । পাতং বিচ খুবি সুন্দর । সারাদিন দেখে ঘুমিয়ে দিন পার করে দিন।কারন রাতের বাংলারোডের Party গুলো খুবি বিনোদনের। রাতেই আমি কেটে নেই পরের দিন সকালের ফি ফি যাবার টিকিট । আপনাকে দাম দর করতে হবে। আমি ৩২০ বাথে পিকাপ সহ ফেরির টিকিট কেটে ফেলি। ফেরি ৭ টা ১১টা এবং ৩টায় ছেঁড়ে যাই । আমি ১১ টায় যাই । 


ফিফি পৌছেই আপনাকে আইল্যান্ড এর ফি ৩০ বাথ দিতে হবে। সেটা পরিশোধ করে হেটে গেলাম একটা সস্তা হোস্টেলে । ১৮০ বাথ পার রাত। ফি ফিতে সব কিছুর দাম খুবি বেশী । এমনকি ৭/১১ এও দাম এখানে বেশী রাখে। তাই আমি বলব আপনি খাবার ফূকেট থেকে কিনে আনুন। ফিফিতে এসে সাগরে গোছলের অভিজ্ঞগতা অপূর্ব। হেটে চলে যাবেন VIEW POINT এ। এখান থেকে পুরো ফিফি দেখা যাই। যেটা অপূর্ব । VIEW POINT এ যেতে আপনাকে দিতে হবে ৩০ বাথ। রাতে বীচে বিভিন্ন অনুষ্ঠান হয়। দেখতে পারেন । পরেরদিন সকালে উঠে হাটা শুরু করলাম LONG BEACH দিকে। প্রায় ২ ঘণ্টা হেটে ২টা পাহাড় পার করে পৌছায় LONG BEACH । মাঝের পাহাড় এবং ছোট বিচ গুলো ছিল অসাধারণ ।কিছু রিসোর্ট ও আছে পাহাড় গুলাতে। Honeymoon couple দের জন্য Perfect । LONG BEACH(অসম্ভব সুন্দর) দেখে হাটা শুরু করলাম আরও সামনে। পৌছে গেলাম একটি থাই গ্রামে ।বিশ্বাস করুণ আমি হয়ত মৃত্যুর তারিখ যানা থাকলে এখানে গিয়েই মরতে চাইব। খুবি সান্ত তবে পাহাড়ের অনেক উপরে।


ফেরার পথেও একই রুট । বিভিন্ন সোল ট্রাভেলারদের সাথে আড্ডা এবং গান ও পাহাড় এক্সপ্লোর । রাতে আবারো ফিফির অনুষ্ঠানে ছিলাম। ব্যাংকক থেকেই কিছু বন্ধুদের সাথে আড্ডা ।ফিফি তেই আপনি ব্যাংকক ফেরার ফেরী সহ বাস টিকিট পেয়ে যাবেন খরচ পড়বে মাত্র ৯০০ বাথ। ফিফি তে পানির দাম সস্তা । ৪০ বাথে আপনি ৬ লিটার পানি কিনবেন। এটা আপনার পানির খরচ ফিফির বাইরে বাংককেও সাহায্য করবে। 


৯০০ বাথ খরচ করেই পরের দিন বিকালে রওনা দিয়ে তার পরদিন পৌছে গেলাম ব্যাংকক । সেখানে খাওসান রোডে ছিলাম। পরিচিত হোস্টেল এবং নতুন Backpacker বান্ধবীকে নিয়ে বেড়িয়ে পড়লাম হেটে ব্যাংকক এক্সপ্লোর করতে। খাওসান রোড থেকে হেটে গেলাম সংক্রান মন্দির সেখান থেকে খাও ফারা নদী পার হলাম ৩.৫ বাথে। পার হয়েই একটা থাই মার্কেট । তার পাশে পেলাম আরো একটি সুন্দর মন্দির। সেটা দেখা শেষে হাটা শুরু করলাম আরুন মন্দিরের দিকে। প্রায় ৪০ মিনিট হেটে পৌছালাম আরুন মন্দিরে। অসাধারণ একটি মন্দির । আপনাকে ৫০ বাথ দিতে হবে। আর ঢোকার জন্য আপনাকে অবশই ফুল প্যান্ট পরতে হবে। এটা প্রায় সব গুলা মন্দিরে প্রবেশের জন্যই ।সেখান থেকে হেটে গেলাম বিগ বুধার মন্দিরে। ঢুকতে প্রায় ২০০ বাথ মত লাগে। তাই আমরা আর ভিতরে যাইনি । সেখান থেকে হাটা শুরু করলাম খাওসান রোড । প্রায় ৪০ মিনিট পর পৌছালাম। জানিনা পাশে সুন্দরী মেয়ে থাকাই কিনা এত বেশী হাটার ফলেও খারাপ লাগে নাই । রাতে খাওসান রোডে বাজার বসে সাথে পার্টি তো আছেই। তার পরদিন রাতে আবার ডণ মুএং এবং ১১টাই ঢাকার উদ্দেশে যাত্রা ।


এবার আসি খরচে । ১০০ $ এ আপনি প্রায় ৩১৭৫ বাথ পাবেন। 

ব্যাংকক থেকে ফূকেট= ৭০৮ বাথ

ফূকেট টূ পাতং= ৪৫ বাথ
পাতঙ্গে রাত= ৯৯ বাথ
পাতং টূ ফি ফি= ৩২০ বাথ
ফি ফি তে থাকা = ৩৬০ +৩০বাথ(২ রাত)
ফি ফি থেকে ব্যাংকক= ৯০০ বাথ
বাংককে থাকা = ১১০ বাথ
বাস টার্মিনাল টূ খাওসান = ২১ বাথ
খাওসান টু ডণ মুএং= ৫০ বাথ
টোটাল = ২৬৪৩ বাথ। 
খেয়েছি প্রায় সব সময়ই ৭/১১ এ ফ্রাইড রাইস উইথ এগ বা চিকেন । জার দাম প্রায় ৩১ বাথ এবং ৩২ বাথ। পানি ১.৫ লিটার = ১২ বাথ । এবং ফি ফির ৪০ বাথের ৬ লিটার পানি কিছু ছিলই। তাছাড়া বাংককে আমার হোস্টেলে সকালের খাওয়া ফ্রি ছিল। সব মিলিয়ে একটু হিসাব করলেই আপনি ৩১৭৫ বাথেই ঘুরে আসতে পারবেন ।


আমি সব জায় গারই ভিডিও করেছি। যেটা নিজের চ্যানেলে কাল বা পরসু থেকে অপ্লোড দিব। আমার ইউটিউব চ্যানেল—-

YOUTUBE

আশা করি আপনারা দেখবেন। আর একটা কথা অন্যের সংস্কৃতিকে সম্মান করা উচিৎ । তাছাড়া মেয়ে বা নারীদেরও সম্মান করবেন ভ্রমণের সময়। কেও ছোট কাপড় পরছে মানেই তিনি খারাপ মেয়ে নন। আর ঘুরে ফিরে বিদেশে গিয়ে মেয়েদের দিকে কটু দৃষ্টিতে তাকানো উচিৎ নয়।

একজন দক্ষিন এশিয়ার ছেলের সাথে ঘুরছে মানে এই নয় যে তিনি আপনি দক্ষিন এশিয়ার ছেলে বলে আপনার সাথেও সমান Comfortable । ট্রাফিক আইন মেনে চলার চেষ্টা করুণ। কথা আস্তে বলুন যাতে আপনার পাশে বসা মানুষটি আপনার জন্য বিরক্ত না হয়।যেখানে সেখানে থুথু ফেলবেন না ।যেহেতু এটা আমার সবচেয়ে পছন্দের গ্রুপ। তাই আমি আশা করব ভ্রমণকারীরা বিদেশে নিজের দেশের সম্মান রক্ষা করবে। এবং ভুল কিছু বলে থাকলে ক্ষমার দৃষ্টিতে নিবেন ।

writer: Sourov Ahmed 

Related posts
Bengali Blog

ইথিওপিয়া - প্রাচীনতম মানুষের দেশ.

Bengali BlogTravel Blog

পার্টি সিটি গোয়া ভ্রমন

Bengali BlogTravel Blog

নাগাল্যান্ড ভ্রমনের আদ্যপান্ত।

English BlogTravel Blog

Trip to Delhi>Agra>Jaipur Triangle.

Sign up for our Newsletter and
stay informed

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares